1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ১০:৩৬ পূর্বাহ্ন

বন্দরে জেলা আ’লীগের সদস্যসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানীর মামলা

নারায়ণগঞ্জ টাইমস
  • সোমবার, ৩ মে, ২০২১
  • ১৩৮
বন্দরে শ্লীলতাহানী ও মারধর : জেলা আ’লীগের সদস্যসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বন্দরে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মদনগঞ্জে এক নারীকে শ্লীলতাহানীসহ তার দেবর ও ছেলেকে লোহার সাবল দিয়ে পিটিয়ে মারাত্নক জখমের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে ওয়াহিদা বেগম বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেন, আনোয়ার হোসেনসহ ৮জনকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ১(৫)২১ইং।

হামলার ঘটনায় জড়িত নারায়ণগঞ্জ জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন(৬৫)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে মদনগঞ্জ এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে,মদনগঞ্জ লক্ষারচর এলাকার মৃত শাহাবুদ্দিন কালাচান মিয়ার স্ত্রী ওয়াহিদা বেগমের সাথে একই এলাকার জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের সাথে বাড়ির সিমানায় টিনের প্রাচীর দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলছিল।

এর ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে ওয়াহিদা বেগমের বাড়ির সিমানায় ওই এলাকার আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার হোসেনসহ ১০/১৫জন নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় ফের দখল করার চেষ্টা চালায়।

ওয়াহিদা বেগমের ছেলে সাব্বির বাধা দিতে গেলে দখলকারীরা অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। পরে আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তালা দিতে আসলে সে প্রতিবাদ করলে ওই মধ্যবয়সী নারীকে চুলের মুঠি ধরে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে।

আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন লোহার সাবল দিয়ে ওয়াহিদা বেগমকে কুপ দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলে ওই নারী ওয়াহিদা বেগমের ভাগ্নে রাসেল বাচাতে গেলে গুরুতর জখম হয়।

একপর্যায়ে আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার, লুৎফর, নিজুম, আশিক, ফাহিম, কাব্বি, ওসমান গনিসহ সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তান্ডব চালায়।

এ সময় ঘরের আলমারিতে রক্ষিত ১লক্ষ টাকা ও ১ভরি স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায়। আহত ওই নারী ওয়াহিদার আর্ত চিৎকাওে আশপাশের লোক এগিয়ে আসলে হামলা কারীরা প্রাননাশের হুমকি দিয়ে চম্পট দেয়।

প্রতিবেশিদের সহায়তায় আহত ওই নারীসহ পরিবারের কয়েকজনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা জানান, মধ্যবয়সী ওই নারী ও তার পরিবারের সদস্যদের পেটানোর ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলায় জড়িত একজন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart