1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ১০:২৯ পূর্বাহ্ন

বেড়েছে শাক-সবজি নিত্যপন্যের দাম

নারায়ণগঞ্জ টাইমস
  • শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১
  • ১১৭
বেড়েছে শাক-সবজি নিত্যপন্যের দাম

কয়েকদিনের ব্যবধানে নারায়নগঞ্জের অধিকাংশ বাজারে বেড়েছে শাক-সবজি ও নিত্যপন্যের দাম। সবজিতে বেড়েছে প্রতি কেজি ১০-১৫ টাকা। শনিবার নগরীর দিগুবাবুর বাজার, কালির বাজার ও তল্লার বউ বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখাগেছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন বাজারে পর্যাপ্ত পরিমান শাক-সবজি ও নিত্যপন্য রয়েছে কিন্তু লকডাউনের নিষেধাঞ্জার কারনে পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়ায় বাজারে বেশী দামে সব কিছু বিক্রি করতে হচ্ছে।

দিগুবাবুর বাজারের সবজি বিক্রেতা আলম মিয়া জানান, বাজারে শাক-সবজি ও খাদ্য দ্রব্যর পরিমান আগের চেয়ে ও বেশী কিন্তু পরিবহন ভাড়া বেশী থাকায় আগের চেয়ে বেশী দামে বিক্রি করতে হয়।

সরজমিনে শহরের কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখাগেছে সবচাইতে বেশী দাম বেড়েছে বেগুনের দাম। রমজানের আরো কয়েকদিন বাকী থাকলেও এর মধ্যেই ৫-১০ টাকা বেড়েছে লম্বা বেগুনের দাম।

আগের সপ্তাহে লম্বা বেগুন ৪০ টাকায় বিক্রি হলেও তা ৫০-৫৫ টাকায় বিক্রি করছে ব্যবসায়ীরা।

এছাড়াও পালং শাক, পুইশাক, লালশাক বিক্রি হচ্ছে আগের চেয়ে বেশী দামে। এক কেজি শাক কিনতে ক্রেতাদের গুনতে হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা। বেড়েছে টমেটোর দাম এক পাল্লা টমেটোর দাম বিক্রি করছে ৭০-৮০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে বিক্রি ছিল ৫০-৫৫ টাকায়।

এছাড়াও কাচা মরিচের দাম প্রতি কেজি ৩০ টাকা,শশা ২০ টাকা, শিম ৪০ টাকা,ঢেঁড়শ ৪০ টাকা, পোটল ৪০-৪৫ টাকা, ধুন্দল ৪৫-৫০ টাকায় বিক্রি করছে। সবচাইতে দাম বেড়েছে লেবুর দাম। প্রতি হালি লেবুর দাম ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি করছে দোকানীরা।

তবে আগের চেয়ে কমেছে পেয়াজের দাম। পাইকারি প্রতি পাল্লা পেয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫৫-১৬০ টাকায়। ভারত থেকে আমদানী পেয়াজ ১৪০-১৪৫ টাকা।আলুর পাল্লা পাইকারিতে ৯০-৯৫ টাকা। এছাড়াও খুচরা বিক্রি হচ্ছে ২০-২২ টাকা দরে।

আমদানী করা মাঝারি ধরনের মুশরির ডাল ৭০-৮০ টাকা। দেশী মুশুরির ডাল ১১৫-১২০ টাকা।মুগডাল মানবেধে ১২০-১৪০ টাকা।দেশী রসুনের কেজি ৭০-৮০ টাকা। আমদানি করা রসুন ১১৫-১২০ টাকা। দেশী আদা ১০০-১১০ টাকা। এছাড়াও আমদানি করা আদা ১২০-১৪০ টাকা।

এদিকে প্যাকেট আটা ৩২-৩৫ টাকা। চিনি মানবেধে ৬৫-৭০ টাকায় বিক্রি করছে। লবন ৩৫-৪০ টাকা, জিরা ৩২০-৪০০ টাকা, ছোট এলাচ মানবেধে ২৫০০-৩৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ভোজ্য তেলের দাম না বাড়লেও তা আগে থেকেই বেশী চড়া। প্রতি কেজি খোলা সয়াবিন তেলের দাম ১২৫-১৩০ টাকা। খোলা পাম ওয়েল ১১০-১১৫ টাকা। সয়াবিন এক লিটার বোতল ১৪০ টাকা।

তবে মুরগীর দাম কিছুটা কমেছে। বয়লার ১৪০-১৪৫ টাকা, সোনালী মুরগীর দাম ২৩০-২৫০ টাকা। গরুর মাংস এক কেজি ৫৮০-৬০০ টাকা, খাসি প্রতি কেজি ৮০০-৮৫০ টাকা। বয়লার মুরগীর ডিম একডজন ৯০-৯৫ টাকা ধরে বিক্রি করছে বিক্রেতারা।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart