1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৪:১৬ অপরাহ্ন

বন্দরে মসজিদের ইমামকে কেন্দ্র করে মসজিদের ভেতর জাপার দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৫ (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ টাইমস:
  • শুক্রবার, ২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬৪৯
বন্দরে মসজিদের ইমামকে কেন্দ্র করে মসজিদের ভেতর জাপার দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৫ (ভিডিও)

বন্দরে মসজিদের ইমামকে অব্যাহতি দেওয়ার জের ধরে জাতীয় পার্টির দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় মসজিদ কমিটির মোতয়াল্লী, মুসল্লী ও সাংবাদিকসহ কমপক্ষে ৫ জন রক্তাক্ত জখম হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (২ এপ্রিল) বাদ জুম্মা বন্দর থানার সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদে ভিতরে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে। সংঘর্ষের ঘটনায় আহতরা হলো মসজিদের মোতয়াল্লী সিরাজ মুন্সি (৬৫) মুসল্লী আলতাফ (৫০) জালাল মিয়া (৫০) ফয়সাল (২৫) ও ফটো সাংবাদিক ইমরুল কায়েস সোহেল (৪০)। এলাকাবাসী আহতদের জখম অবস্থায় উদ্ধার করে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদ পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

ডিভিও লিঙ্ক : https://fb.watch/4CRAZm6EZK/

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সম্প্রতি বন্দরের সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা সাইফুল্লা উল্লেখিত মসজিদে মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে সরকার বিরোধী বক্তব্য রাখে বলে অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় সোনাকান্দা চৌধুরীপাড়া এলাকার জাতীয় পাটির নেতা আজিজ সমর্থিত কিছু লোক প্রতিবাদ করে। পরে তারা ইমাম সাইফুল্লাকে অব্যাহতি প্রদানের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেয়। এতে করে মসজিদ কমিটি মাওলানা সাইফুল্লাকে গত ৩ দিন পূর্বে পাওনা বেতন দিয়ে তাকে অব্যাহতি প্রদান করে। এ ঘটনার জের ধরে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্ল্যাহ সানুর উপস্থিতিতে তার ভাতিজা জেলা ছাত্র সমাজের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল অব্যাহতি প্রাপ্ত ইমাম সাইফুল্লাকে দিয়ে জুম্মার নামাজের ইমামতি করার চেষ্টা চালায়। ওই সময় জাতীয় পাটির নেতা আজিজ ও তার লোকজন প্রতিবাদ জানালে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান ও জাতীয় পাটির নেতা সানা উল্ল্যাহ সানু  এগিয়ে গেলে জাতীয় পাটির নেতা আজিজ বাহিনী তাকে লাঞ্চিত করে। এতে মজজিদের ভেতর চরম হট্টোগোল, হৈই চৈই ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে মসজিদের মোতয়াল্লী, মুসল্লী ও সাংবাদিকসহ ৫ জন রক্তাক্ত জখম হয়। এসময় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে জুম্মার নামাজ পড়তে আসা মুসুল্লিদের মধ্যে। খবর পেয়ে বন্দর থানার সেকেন্ড অফিসার মোদাচ্ছেরের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

তবে মুসুল্লিদের আরেকটি অংশ জানায়,বেশ কিছুদিন যাবৎ বন্দর সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদের পেশ ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহকে নিয়ে কমিটির একটি অংশ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এমনকি তাকে তাড়ানোর জন্য মসজিদের ভিতরে কয়েকবার মুসল্লীদের সঙ্গে জাতীয়পার্টি নেতা আজিজুল, মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন, জামাত নেতা কাজী মামুন, মোতাওয়াল্লী সিরাজ মুন্সি ও শরিফের সাথে বাকবিতন্ডাও হয়। পরে ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহ গত বৃহস্পতিবার মসজিদের কমিটির কাছে বেতন বুঝে নিয়ে চলে যায়। এমন সংবাদে সোনাকান্দা কিল্লা জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি এবাদুল্লাহসহ শতাধিক মুসল্লী গিয়ে ঈমাম মুফতী সাইফুল্লাহ মিয়াকে অনুরোধ করে জুম্মার নামাজ আদায় করার জন্য মসজিদে নিয়ে আসে। এরই জের ধরে জুম্মার নামাজের বয়ানের সময় আকস্মিকভাবে জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আজিজুলসহ ৩০/৪০জনের একটি সংঘবদ্ধ দল মসজিদে প্রবেশ করে হইচই শুরু করে দেয়। এ সময় ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি এবাদুল্লাহসহ কয়েকশত মুসল্লীদের মধ্যে পূণরায় তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে ঈমামের উপর মারমূখী আচরন করার সময় বন্দর উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান সানা উল্লাহ সানুর লোকজনের সাথে আজিজুলের লোকজনের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। চরম হৈই চৈই ও হট্টোগোলের মধ্যে সানাউল্লাহ সানু এগিয়ে গেলে তাকে জাতীয় পার্টি নেতা আজিজুল লাঞ্চিত করে।

বন্দর উপজেলা পরিষদের সহকারি (ভূমি) কমিশনার আসমা সুলতানা নাসরিন ও স্থানীয় কাউন্সিলর হান্নান সরকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত মসজিদের ইমামকে অব্যাহতি দেওয়ার ঘটনায় উভয় পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart