1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৮:০৬ অপরাহ্ন

নারায়ণগঞ্জে আইভী-শামীমের কি ক্ষমতা আছে? : ডা. জাফরুল্লাহ

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৯৭

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, দেড়শত বছরের ঐতিহ্যবাহী নারায়ণগঞ্জ শহরের লোকসংখ্যা ৩০ লাখ। কিন্তু তাদের হাতে কোনো ক্ষমতা নাই। র‌্যাবের হাতে ৭ জন মারা গিয়েছিল। ত্বকী হত্যার বিচার নেই। মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় ৩৫ জনের মধ্যে অর্ধেকের মৃত্যুর কোনো যুক্তিসঙ্গত কারণ নাই। ঘটনাটা যেভাবে হয়ে থাকুক কিন্তু চিকিৎসাটা করা যেত এখানেই। কিন্তু তা হয়নি কেবল সদিচ্ছার কারণে।
শুক্রবার (৯ অক্টোবর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জে অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশে কাঠামোগত হত্যাকান্ড এবং নাগরিকের নিরাপত্তা’ শীর্ষক গণসংলাপে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের জন্মকথা, অধিকারের কথা অধিকাংশ লোকই জানেন না। তারা দেখে এসেছেন শামীম ওসমান, আইভী, তৈমুর আলম, শফিউল্লাহকে। তারা প্রত্যেকেই আমার ঢাকার মনিবের খাদেম। নারায়ণগঞ্জের নেতা-নেত্রীরা ২৫ মাইল দূরে অবস্থান করা মনিবের খাদেম। নারায়ণগঞ্জবাসী নারায়ণগঞ্জ শাসন করবে। প্রয়োজনে একটা গভর্নর দিতে পারেন বা নির্বাচিত প্রতিনিধি। তাহলে রাত ১২টার সময়ও তার কাছে যেতে পারবেন। আমাদের পুরোপুরি গঠনপ্রনালী বদলাতে হবে। পরিবর্তন আনতে হবে।
নারায়ণগঞ্জে কার কত ক্ষমতা প্রসঙ্গে জাফরুল্লাহ বলেন, গ্রেপ্তারের পর সম্রাটকে ১১ মাস পিজির ভিআইপি কেভিনে রাখা হয়েছিলো। কিন্তু ব্যারিস্টার মঈনুল কারাগারে বালিশ পায় নাই। আমাদের এই সব বিষয়ে সংষ্কার প্রয়োজন। আপনাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের দেখা শুনার পরিচালনার দায়িত্ব সাধারণ জনগনের উপর থাকতে হবে। এখানে আইভীর কি ক্ষমতা আছে? শামীম ওসমান আছেন তার কি ক্ষমতা আছে? প্রধানমন্ত্রীর অফিসের বাহিরে বসে থাকতে হয়। নারায়নগঞ্জের শাসন নারায়ণগঞ্জবাসীর উপর দিতে হবে। আমাদের এখানে পরিবর্তন আসছে না কেন?
নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের প্রসঙ্গ তুলে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ঘটনার পর দগ্ধদের নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নেওয়ার পরপরই মরফিন ইনজেকশন দিয়ে দিলে এত প্রাণহানি হতো না। এত বড় একটা হাসপাতালে দুই লাখ মরফিনের লাইসেন্স নাই। কারণ ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল তো আর নারায়ণগঞ্জের মানুষ চালায় না, ঢাকার খাদেমরা চালায়। নারায়ণগঞ্জ জেলাতে উপজেলাগুলো মিলিয়ে সরকারি হাসপাতাল মাত্র ১৮টা অথচ বেসরকারি হাসপাতাল ১১২টা। এইটাই হচ্ছে বাস্তব চিত্র। বিস্ফোরণে হতাহত ৩৫ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ৫ লাখ টাকা অনুদানেরও সমালোচনা করেন তিনি। অন্তত ৩০ লাখ টাকা প্রদানের দাবি জানান ডা. জাফরুল্লাহ।
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার পরিবর্তন নয় পুরো নিয়মের সামগ্রিক পরিবর্তন প্রয়োজন। ভয় পেলে চলবে না। মানুষের হাতে ক্ষমতা না আসলে অবস্থার পরিবর্তন হবে না। আমাদের পুরোপুরি গঠনপ্রনালী বদলাতে হবে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কবরে পাঠাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতির নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যদের সরিয়ে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা দেওয়ার কাজে ব্যবহারের পরামর্শ দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ধর্ষকের ফাঁসির দাবি উঠেছে। আমি ফাঁসির পক্ষে নয়। কারণ ফাঁসিই সমাধান নয়। সুষ্ঠু বিচারের মাধ্যমে মানুষের মনে যেন শাস্তির কথা মনে থাকে সেই বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। ফাঁসি দেওয়ার পর ভুলে গেলে তাতে কোনো লাভ হবে না।
নারায়ণগঞ্জ জেলা গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক তরিকুল সুজনের সভাপতিত্বে ও গণসংহতি আন্দোলন জেলা শাখার নির্বাহী সমন্বয়কারী অঞ্জন দাসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহবায়ক রফিউর রাব্বি, বাসদের জেলা সমন্বয়কারী নিখিল দাস, নারী সংহতির নেত্রী পপি রাণী সরকার, কবি আরিফ বুলবুল, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদ প্রমুখ।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart