1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৮:৩৭ অপরাহ্ন

বন্দরে খান মাসুদ বাহিনীর ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২২১

বন্দরে ছাত্রলীগ নেতা খান মাসুদের পালিত সন্ত্রাসী রাজুর নেতৃত্বে কিশোর গ্যাংয়ের সন্ত্রাসী হামলায় সংখ্যালঘু ইন্দ্রজিৎ সাহা (৪৩) আহত হওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মঙ্গলবার (গত ২২ সেপ্টেম্বর) রাতে আহত ইন্দ্রজিৎ সাহা ওরফে মনা বাদী হয়ে কিশোর গ্যাংয়ের হোতা সন্ত্রাসী রাজুসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৮/৯ জনকে অজ্ঞাত নামা আসামী করে বন্দর থানায় এ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ২৫(৯)২০।
মামলার আসামীরা হলো, বন্দর থানার নূরবাগ এলাকার নুরুল ইসলাম ওরফে পাতলা মিয়ার ছেলে রাজু (৩১) বালুচর এলাকার শাহআলম মিযার ছেলে আকিব হোসেন রাজু (২৮) বন্দর খানবাড়ী এলাকার দিলিপ খানের ছেলে সায়মন খান, হাজীপুর এলাকার মোঃ হোসেন মিয়ার ছেলে পাভেল, বন্দর রাজবাড়ী বালুর মাঠ এলাকার রাজিব ও বন্দর আমিন আবাসিক এলাকার পাগলা শাহিন, সানী, রাসেল, লোকনাথ, পিয়েল ও মাজহার। মামলার আসামীরা সবাই ছাত্রলীগ নেতা খান মাসুদ বাহিনীর সদস্য বলে জানিয়েছে মামলার বাদী।

আরও পড়ুন সৈয়দপুরে ৭ অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন, জরিমানা

জানা গেছে, বন্দর থানার আমিন আবাসিক এলাকার মৃত বিজয় গোপাল সাহা ছেলে ইদ্রজিৎ সাহা ওরফে মনা গত ২২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১২টার সময় তার বন্ধু নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানের অফিসে প্রয়োজনীয় কাজ শেষ করে আমিন আবাসিক এলাকায় তার নিজ বাড়িতে ফিরছিল। সংখ্যালঘু ইদ্রিজিৎ সাহা মনা আমিন আবাসিক এলাকাস্থ ছায়ানূর হাসপাতালের সামনে আসলে ওই সময় ওৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী রাজুর নেতেৃত্বে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য আকিব হোসেন রাজু, সয়মান খান, পাভেল, পাগলা শাহিনসহ অজ্ঞাত ১৫/২০জনের একটি কিশোর বাহিনী লাঠি শোঠা নিয়ে তার উপর হামলা করে। ওই সময় হামলাকারিরা ইদ্রজিৎকে বেদম ভাবে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে একটি ১০ আনা ওজনের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আহতের ডাকচিৎকার শুনে এলাকাবাসী দ্র্রত ঘটনাস্থলে আসলে ওই সময় হামলাকারিরা কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে আহতকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বন্দর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করে।
এ ব্যাপারে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফখরুদ্দীন ভূঁইয়া গনমাধ্যমকে জানান, বন্দরে কাউন্সিল দুলাল প্রধানের বন্ধু আহতের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলার এজাহারভূক্ত আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য বিভিন্ন স্থানে আমাদের অভিযান অব্যহত রয়েছে। বন্দরে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড কাউকে করতে দেওয়া হবে না। সন্ত্রাসী বা কিশোর অপরাধী যেই হোক অব্যশই তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, বন্দরে ডিশ ব্যবসার আধিপত্য নিয়ে কাউন্সিলর দুলাল প্রধানের সাথে ডিশ ব্যবসায়ী শ্যামলের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে গত ৬ সেপ্টেম্বর ছাত্রলীগ নেতা খান মাসুদের সমর্থকরা ডিশ ব্যবসায়ী শ্যামলের পক্ষ নিয়ে কাউন্সিলর দুলাল প্রধানের সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে দুলাল প্রধানের ড্রেজারে অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ নিয়ে উভয় শিবিরে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। এ ঘটনায় স্থানীয় এমপি সেলিম ওসমান ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপে গত ৭ সেপ্টেম্বর বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ এমএ রশীদ উভয় পক্ষকে ডেকে নিয়ে বিষয়টি আপোষ মিমাংশা করে দেয়। আপোষ মিমাংশার ১৪ দিন পর গত ২২ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ১২টায় ওই ঘটনার জের ধরে খান মাসুদের পালিত সন্ত্রাসী কিশোর গ্যাংয়ের মূলহোতা রাজুর নেতেৃত্ব সংখ্যালঘু ইদ্রজিৎ সাহার উপর পুনরায় অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাকে আহত করে।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart