1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন

বন্দরের মাসুম চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২৫১

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, তার ছেলে ও ভাতিজার বিরুদ্ধে মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগে মামলা করেছেন মজিবুর রহমান নামে স্থানীয় এক ব্যক্তি। স¤প্রতি নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়। মামলাটির পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) উপপরিদর্শক শাকিল আহমেদ তদন্ত করছেন। সিআর মামলাটির নম্বর: ১০০/২০।

মামলার এজাহারে ধামগড় ইউনিয়নের হালুয়াপাড়া গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে বাদী মজিবুর রহমান উল্লেখ করেছেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে গত ১২ এপ্রিল চেয়ারম্যান মাসুম আহমদ ও তার ছেলেসহ ৮ জন বাড়িতে এসে গালাগালি করে। পরে অতর্কিত হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এক পর্যায়ে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি ও লাথি এবং লাঠিসোটা দিয়ে বেদম মারধর করে রক্তাক্ত করার অভিযোগ করেন বাদী।

বাদী মামলায় বলেন, আমার স্ত্রী আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসতে চাইলে তাকেও চুলের মুঠি ধরে মারধর করা হয়। ঘরে থাকা মালামাল ভাঙচুর ও লুটপাট করে নিয়ে যায় এবং আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে বন্দর থানায় মামলা করতে গেলে মামলা না নিলে করোনার কারণে আদালতেও যেতে পারিনি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর মামলাটি দায়ের করেছি।

এই মামলায় ধামগড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। মামলার বাকি আসামিরা হলেন: চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদের ছেলে জিতু, মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে মো. রাসেল, সুরুজ মিয়ার ছেলে মো. ফারুক, নয়ন, মৃত আলী আকবরের ছেলে তোয়াবের হোসেন, আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মোশারফ, ফজল হকের ছেলে দেলোয়ার হোসেন।

মামলাটির তদন্তভার পেয়েছেন পিবিআইয়ের উপপরিদর্শক (এসআই) শাকিল আহমেদ। তিনি বলেন, গত মঙ্গলবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগকারী লোকজনের সাথে কথা বলেছি। পুরো বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ বলেন, করোনাকালীন সময়ে সবাইকে ঘরে থাকতে বলা হয়েছিল। কিন্তু মজিবুর রহমান বাড়িতে না থেকে বাইরে অযথাই ঘোরাঘুরি করছিল। তাকে ঘরে যেতে বললেও সে তা না শুনে তর্কবিতর্ক করে। এ নিয়ে বেশি কিছু আর হয়নি।

এই মামলায় মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে দাবি করে চেয়ারম্যান বলেন, ‘ওই লোকের সাথে আমার কোন শত্রুতা নেই। প্রতিপক্ষের লোকজন শত্রুতাবশত কেউ তাকে দিয়ে এই মামলা করিয়েছে। তদন্তে সব সত্য বেরিয়ে আসবে।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart