1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১১:৪৯ পূর্বাহ্ন

না,গঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩০৩
তল্লা মসজিদে বিস্ফোরণ : অপরাধী ২৯ জনের তালিকা

নারায়ণগঞ্জের মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনা খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপস) লে. কর্ণেল জিল্লুর রহমানকে প্রধান করে এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটি একসঙ্গে কেন ছয়টি এসিই বিস্ফোরিত হয়েছে তা তদন্ত করে দেখবে।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন বলেন, বিস্ফোরণের খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে দগ্ধ লোকজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। মসজিদে ছয়টি এসি ছিল। প্রাথমিকভাবে ছয়টি এসিই বিস্ফোরিত হয়েছে বলে মনে হয়েছে। কেন ছয়টি এসি বিস্ফোরিত হলো তা তদন্তে একটা কমিটি করে দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ৯টার দিকে ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এশার নামাজের জামাত শেষ হওয়ার পর এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে মসজিদের ইমাম আব্দুল মালেক (৬০)সহ অন্তত ৪০ জন মুসল্লি দগ্ধ হয়েছেন। আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে বার্ণ ইউনিটের একটি সূত্র জানিয়েছে সেখানে ৩৭ জন মুসুল্লিকে সেখানে ভর্তি করা হয়েছে। যাদের শরীরের বিভিন্ন অংশ দগ্ধ হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, দগ্ধদের বেশিরভাগ ৯০ থেকে ৫০ ভাগ পুড়ে গেছেন। অনেকের শ্বাসনালীসহ গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ পুড়ে যাওয়ায় তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আরও পড়ুন না,গঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ, শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ৩৭ জন ভর্তি

 

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পশ্চিম তল্লার বাইতুছ সালাত জামে মসজিদে এশার নামাজ শেষে মোনাজাত হচ্ছিল। এ সময় হঠাৎ বিকট শব্দে মসজিদের কাছের বৈদ্যুতিক ট্রানসফর্মারে বিস্ফোরণ ঘটে। সঙ্গে সঙ্গে মসজিদের ভেতরে এসির বিস্ফোরণও ঘটে। মুহূর্তে মসজিদের ভেতরে আগুন ধরে যায়। আগুনের ফুলকি ছড়িয়ে পড়লে মুসল্লিরা দগ্ধ হতে থাকেন।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, ‘ওই মসজিদটির নিচ দিয়ে গ্যাসের পাইপ লাইন নেওয়া হয়েছে। সেই পাইপ ছিদ্র হয়ে গ্যাস নির্গত হচ্ছিল। পুরো মসজিদটি শীততাপ নিয়ন্ত্রিত হওয়ায় গ্যাস জানালা দিয়ে বাইরে বেরুতে পারেনি। ওই অবস্থায় কেউ মসজিদের ভেতরে এসি অথবা ফ্যানের সুইচ বন্ধ করার সময় সৃষ্ট ছোট্ট স্পার্ক থেকেই আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে মসজিদের ভেতরে আগুন ধরে যায় এবং মসজিদে নামাজরত মুসল্লিরা অগ্নিদগ্ধ হয়।’

তিনি বলেন, ওই মসজিদে থাকা ৬টি এসির সবগুলোই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনার পর মসজিদের ফ্লোরে পানি ছিটিয়ে তারা গ্যাস নির্গত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হতে পেরেছেন।
ইনস্টিটিউটের সমন্বয়কারী ডাক্তার সামন্ত লাল সেন জানান, এখন পর্যন্ত ৩৭ দগ্ধ রোগী ইনস্টিটিউটে এসেছেন। তাদের অধিকাংশের শরীর মারাত্মকভাবে দগ্ধ রয়েছে। তবে হাসপাতালে এখনও কারো মৃত্যু হয়নি।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart