1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ১১:০০ পূর্বাহ্ন

সোনারগাঁও আ’লীগের বর্ধিত সভা, মিশ্র প্রতিক্রিয়া

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট, ২০২০
  • ৩৩৩

১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উদযাপনে প্রস্তুতি নিয়ে বর্ধিত সভা করেছে সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগ। মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের একটি রেস্তোরায় সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক অ্যাডভোকেট সামছুল ইসলাম ভ্ইুয়ার সভাপতিত্বে এই বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে সোনারগাঁও ছেড়ে নারায়ণগঞ্জ শহরে বর্ধিত সভা করায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে সোনারগাঁও আওয়ামীলীগের একটি অংশে।
বর্ধিত সভায় জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ মোহাম্মদ বাদল বলেছেন, বাংলার মাটিতে খুনিদের ঠাই নেই। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার জন্য আমরা যুদ্ধ করতে প্রস্তুত আমরা অস্ত্র হাতে নিয়েছি। সেই অস্ত্র বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অস্ত্র।
তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ যে কমিটির ডিকলার দিয়েছে সেই কমিটি নিয়ে কোন কথা থাকতে পারে না। দিস ইজ ফাইনাল। দে উইল ডো দেয়ার ডিউটি। অফ দিজ মেটার। আর কোন কথা থাকে না। এই বিষয় নিয়ে কেউ পুনরাবৃত্তি কখনো করবেন না। দিস ইজ লাস্ট। সোনারগাও কমিটিতে এখানে আমাদের সবাই আছে। আমার হাসনাত ভাই যেমন আছে, কায়সার হাসনাত, মোশারফ ভাই আছে, কালাম ভাই আছে, বিরু ভাই আছে। নেতৃত্ব সামসু ভাই এবং মাসুম ভাইয়ের নেতৃত্বে ইনশাহআল্লাহ আগামী দিনের জয়যাত্রা সফল হবে।
তিনি বলেন, বর্ধিত সভায় কোথায় কি হচ্ছে না হচ্ছে কেন্দ্র খবর নিচ্ছে। ওবায়দুল কাদের ভাই, মির্জা আজম ভাই ঘটনার খবর নিচ্ছেন। শুধু সোনারগাঁয়ের নয় পুরো জেলার খবর নিয়েছেন। গত তিনদিন আগেও যখন আমার সাথে আজম ভাইয়ের কথা হয়েছে অনেক কথা বলেছেন। ভুল করা যাবে না।
ভিপি বাদল আরও বলেন, শুধু সোনারগাঁ না নারায়ণগঞ্জ জেলারও একটা বর্ধিত সভা হওয়া দরকার। সকাল থেকে রাত্র পর্যন্ত হবে। খাওয়া-দাওয়া শেরাটনে খাবেন নাকি সোনারগায়ে নাকি মাসুম ভাইয়ের বাড়িতে সেটা আপনার সিদ্ধান্ত দিয়ে দিবেন। বিরু ভাই জেলা আওয়ামীলীগের আপনার আমাদের গর্ব।
জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু বলেন, ১৫ আগস্টের শোকসভা পালন করার জন্য আপনারা একটা সাকসেসফুল সভা আপনারা ডেকেছেন। সেটা এই আহবায়ক কমিটির পরিপক্কতা। আমি আজকে অনেক আনন্দিত। আমি অত্যন্ত আনন্দিত আমার দু’জন বন্ধুকে আমি এখানে পেয়েছি।
সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের আহবায়ক এড. সামুসুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, ‘আমাদের উচিৎ ছিল সোনারগাঁয়েই সভা করা। কিন্তু অনেকেই নারায়ণগঞ্জে থাকেন তাই এখানে করলেই সুবিধা। এতদুর যাওয়া যাবে না সমস্যা আছে। তার কারণে আমি এই হোটেল ঠিক করেছি। না হলে সোনারগায়েই বসতাম। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে ১৫ আগস্ট পালন করতে চাই। এখানে টাকার খেলামেলা হবে না। এখানে চাঁদাবাজের স্থান হবে না। দুর্নীতির স্থান হবে না। বিএনপি পন্থীদের স্থান হবে না। যারা আওয়ামীলীগে আছেন তাদের সবাইকে নিয়ে আমরা কাজ করতে চাই। এখানে স্বেচ্ছাসেবকলীগ আছে, যুবলীগ আছে, ছাত্রলীগ আছে, সবাই মিলে আমরা কাজ করতে চাই। সব ভুলে গিয়ে আওয়ামীলীগের হয়ে সবাই একত্রে মিলে কাজ করতে চাই।
জেলা আওয়ামীলীগের জয়েন্ট সেক্রেটারী ডা. আবু জাফর চৌধুরী বীরু বলেন, আমাকে বাদল ভাই দায়িত্ব দিয়ে বলেছেন, আপনার বাড়িতো সোনারগাঁ আপনি সবসময় খোজখবর নিবেন। তাই আমি সবসময় খোজ খবর রাখার চেষ্টা করি। কিন্তু ব্যর্থহীন কন্ঠে আমি আপনাদের সবার সামনে কথা দিয়ে যাচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, আমি সোনারগা থানায় রাজনৈতিকভাবে কোন পদ-পদবী নেয়ার আশায় রাজনীতি করি না। আমি আওয়মীলীগের একজন ছোট্ট কর্মী। সেই কর্মী হিসেবে আমি আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করার জন্য আপনাদের সাথে কাজ করতে চাই। আমি জেলা আওয়ামীলীগের জয়েন্ট সেক্রেটারী হিসেবে আমার নেতাদের নির্দেশে আপনাদের সহযোগিতার হাত সবসময় বাড়িয়ে দিব। আপনারা সিদ্ধান্ত নিন কিভাবে সোনারগাঁ আওয়ামীলীগকে সংগঠিত করবেন। আমি আপনাদের প্রতিটি ইউনিয়নে সামসু ভাইয়ের নির্দেশে মাসুম ভাইয়ের সাথে থাকবো।
সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মাসুম বলেন, বর্তমানে জেলা আওয়ামীলীগ আহবায়ক কমিটি দেয়ার পরে আমরা কোন গ্রুপিংয়ে জড়াইনি। কে কোন গ্রুপ করে কে কায়সার হাসনাত, কে কালাম সাব, আমরা কিন্তু এধরণের গ্রুপিংয়ে জড়াইনি। আমাদের সেক্রেটারী সাব আছেন, আমরা কিন্তু গ্রুপিংয়ে জড়াইনি। প্রতিটা ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট সেক্রেটারী আমাদের যেভাবে নাম লিখে দিয়েছে আমরা ঠিক সেভাবেই সার্টিফাইড করে জেলা আওয়ামীলীগের মাধ্যমে তা কেন্দ্রে পাঠিয়ে দিয়েছি। আমরা যারা আওয়ামীলীগ করি তারা গ্রুপিংয়ের শিকার হয়েছি। সোনারগাঁ আওয়ামীলীগ এখন স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারতেছে।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-সোনারগা উপজেলার পৌর মেয়র সাদেকুর রহমান, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক সামছুল ইসলাম ভূইয়া, যুগ্ম আহবায়ক ও পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুম, সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সনমান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ, উপজেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী এ্যাড. নূরজাহান বেগম, সাধারণ সম্পাদক উর্মি আক্তার, থানা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার, স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি মাসুদ রানা, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের উপ গণ-যোগাযোগ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হোসাইন, সোনারগাঁ থানা ছাত্রলীগের সভাপতি রাশেদ মাহমুদ প্রমূখ। এসময় উপস্থিত নেতৃবৃন্দরা শম্ভুপুরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির এই দাবিতে একাত্মা প্রকাশ করেন।

মিশ্র প্রতিক্রিয়া

এদিকে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম এক টেলিফোন বার্তায় প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলে, সোনারগাঁও আওয়ামী লীগের তথাকথিত আহ্বায়ক কমিটির সোনারগাঁয়ের মাটিতে অবস্থান না থাকায় এবং জনসমর্থন না থাকার কারণে তারা এলাকায় মিটিং করতে না পারে শহরের কোন এক রেস্তোরায় মিটিং করতে বাধ্য হয়েছে। এ ধরনের মিটিং ষড়যন্ত্রমূলক। ইতিপূর্বে তারা দাউদকান্দি, তিনশ’ ফিট রাস্তা কিংবা পিজি হাসপাতালে গোপন বৈঠকে মিলিত হয়ে বিভিন্ন ধরনের ষয়যন্ত্র চালিয়েছে। খন্দকার মোস্তাক গংরাও একসময় বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করার জন্য কুমিল্লা বার্ড, চিটাগাং কিংবা বকশিবাজারে গোপন বৈঠকে মিলিত হতো। খন্দকার মোশতাকের অনুসারীরাই সোনারগাঁও আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করার জন্য এ ধরনের গোপন ষড়যন্ত্রে তৎপর রয়েছে । বর্ধিত সভার নামে মিটিং করা হলেও এ সভায় ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে সাতটি ইউনিয়নের সভাপতি-সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন না ।
কালাম বলেন, আওয়ামীপন্থী দুজন চেয়ারম্যান এ সভায় উপস্থিত ছিলেন অন্য চেয়ারম্যান যারা ছিলেন তাদের আওয়ামীলীগের কোন পদ পদবী নেই। তারা জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরামের সাথে সম্পৃক্ত। যে ঐক্য ফোরামের সভাপতি বর্তমান জাতীয় পার্টির এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা। আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা হলেও অধিকাংশ ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ এতে অংশ নেয় নাই। ফলে এই সভাটি সম্পূর্ণরূপে ফ্লপ হয়েছে ।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart