1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ১২:৩৮ অপরাহ্ন

সোনারগাঁয়ে করোনা যোদ্ধা সানাউল্লাহর উপর হামলার ঘটনায় মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ টাইমস
  • শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৫
সোনারগাঁয়ে করোনা যোদ্ধা সানাউল্লাহর উপর হামলার ঘটনায় মানববন্ধন

সোনারগাঁয়ে করোনা যোদ্ধা দলের নেতাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়ে কুপিয়ে আহত ও নির্যাতনের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে “আমরা স্বেচ্ছাসেবি করোনা যোদ্ধা” নামে স্থানীয় একটি সংগঠন।

 

বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের খনসারদি এলাকায় অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধন কর্মসূচীতে আহত করোনা যোদ্ধা সানাউল্লাহ ও তার পরিবারের সদস্যরাসহ এলাকাবাসি অংশ নেন।

 

এতে বক্তব্য রাখেন আহত সানাউল্লাহর মা, স্ত্রীসহ আমরা স্বেচ্ছাসেবি করোনা যোদ্ধা সংগঠনের নের্তৃবৃন্দ ও সদস্যরা। মানবন্ধনে বক্তারা জানান, মহামারি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে “আমরা স্বেচ্ছাসেবি করোনা যোদ্ধা” নামে সংগঠন গড়ে তুলে টীম লিডার হিসেবে নের্তৃত্ব দিয়ে আসছেন স্থানীয় ব্যবসায়ী সানাউল্লাহ বেপারী।

 

বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসা সেবায় সহায়তাসহ মৃত ব্যক্তিদের লাশ দাফন করেছেন। লকডাউন চলাকালীন সময়ে সানাউল্লাহ বেপারী তার সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার এবং ঔষধসহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করেছেন।

 

এছাড়া এলাকায় বাল্য বিবাহ ও মাদক ব্যবসা বন্ধে অগ্রনী ভূমিকা পালন করেন তিনি। ফলে মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। করোনা ভ্যাকসিনের নিবন্ধনের ব্যাপারে এলাকাবাসিকে সহযোগিতা করতে সানাউল্লাহ বেপারী গত ৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় হাড়িয়া এলাকা থেকে উপজেলা কার্য্যালয়ে যুব উন্নয়ন অফিসের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।

 

পথে আমান সিমেন্ট কারখানার গেটের সামনে বিশ পঁচিশ জন সন্ত্রাসী দল দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা করে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখমসহ পিটিয়ে আহত করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

 

পরে স্থানীয় লোকজন ও স্বজনরা সানাউল্লাহকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানকার আইসিইউতে টানা চারদিন চিকিৎসার পর কিছুটা সুস্থ হলে বৃহস্পতিবার তাকে বাড়িতে আনা হয়। তবে তার শারীরিক অবস্থা এখনো ঝুঁকিপূর্ণ।

 

তবে হামলার ঘটনার পরদিন ৯ ফেব্রুয়ারি আহত সানাউল্লাহর বাবা তোফাজ্জল হোসেন বাদি হয়ে নয়জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো সাত আটজনকে আসামি করে সোনারগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন। বক্তাদের অভিযোগ, সানাউল্লাহকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলাকার চিহ্নিত মাদক ও ইয়াবা সম্রাট মোহাম্মদ উল্লাহর নের্তৃত্বে এই হামলা করা হয়েছে।

 

তবে মামলা করার পর চারদিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এখন পর্যন্ত কোন আসােিমক গ্রেফতার করতে পারেনি। যে কারণে আসামিরা বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি দিয়ে আসছে। আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করে তাদের দৃষ্টান্তমূলত শাস্তির দাবি করেন আহত সানাউল্লাহ ও তার পরিবার।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart