1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ০৭:৪৩ পূর্বাহ্ন

মেয়র আইভীর বক্তব্যে বিস্মিত মসজিদ কমিটি

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৪৫
মেয়র আইভীর বক্তব্যে বিস্মিত মসজিদ কমিটি

চাষাঢ়া বাগে জান্নাত জামে মসজিদ ও মাদরাসা কার্যকরী কমিটির সহসভাপতি (দায়িত্বপ্রাপ্ত) আবুল হোসেন কামরান বলেছেন, চাষাঢ়া বাগে জান্নাত জামে মসজিদের অবকাঠামো ভেঙ্গে সেখানে মার্কেটসহ মসজিদ কিংবা মাদরাসা ভেঙ্গে পার্ক নির্মাণের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সঙ্গে মসজিদ মাদরাসা কার্যকরী কমিটির কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। অথচ গত ৩ ফেব্রুয়ারী নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর স্বাক্ষরিত একটি চিঠি প্রেরিত হয় যাতে ১ ও ২নং সিদ্ধান্তে উল্লেখ করা হয়েছে মসজিদ পরিচালনা কমিটি মসজিদ ভেঙ্গে নতুন মসজিদ নির্মাণের বিষয়ে সম্মত হয়েছে যেখানে পরবর্তীতে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন, মসজিদের পরিচালনা কমিটি ও প্রকৌশলীদের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে মার্কেট নির্মাণ করা হবে। অথচ আমাদের সঙ্গে ওই আলোচনায় মসজিদ ভেঙ্গে নতুন মসজিদ নির্মাণ ও সেখানে মার্কেট নির্মাণের বিষয়ে আমরা মসজিদ পরিচালনা কমিটি একমত পোষণ করিনি।

 

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) জুমআর নামাজের খুতবার পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

তিনি আরও বলেন, গত ২৩ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সঙ্গে তার সভাকক্ষে চাষাড়া বাগে জান্নাত জামে মসজিদ ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় বাগে জান্নাত জামে মসজিদ ও মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ মসজিদ ও মাদরাসার জমি সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনের লক্ষ্যে নানাবিধ আলোচনা হলেও কোন ধরনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি।

 

এছাড়া ৩নং সিদ্ধান্তে উল্লেখ করা হয়েছে মসজিদ ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ দ্রুততার সঙ্গে মাদরাসা ভেঙ্গে সরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। ওই আলোচনায় এহেন কোন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়নি। পুরাতন কবরস্থান হিসেবে (সরকারি কাগজপত্রেও) এই জায়গাটি (দাগটি) মুসলিম সমাজের ধর্মীয় কাজে ব্যবহারের জন্য নির্দেশিত বিধায় আমরা বরাবরই মসজিদের ন্যায় অবশিষ্ট জায়গাটিও মাদরাসার নামে বরাদ্দ বা বন্দোবস্ত দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছিলাম। ওইদিন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সঙ্গে অনুষ্ঠিত সভাতেও মাদরাসাটির জায়গা অনুমোদন দেওয়ার অনুরোধ করা হলেও তিনি আমলে নেননি।

আবুল হোসেন কামরান আরো বলেন, বাগে জান্নাত জামে মসজিদটি ৩৬ বছর পূর্বে ১৯৮৫ সালে আলী আহাম্মদ চুনকার আমলে স্থাপিত হয়। পুরাতন কবরস্থান হিসেবে (সরকারি কাগজপত্রেও) এই জায়গাটি মুসলিম সমাজের ধর্মীয় কাজে ব্যবহারের জন্য নির্দেশিত। বহুকাল আগে থেকে মুসুল্লীদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকায় পরবর্তীতে চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন মাহমুদের অনুমতি সাপেক্ষে মসজিদটি সম্প্রসারণ করা হয়। ১৯৯৭ সালে মসজিদ সংলগ্ন স্থানে একটি মাদরাসা নির্মিত হয়। ইতোপূর্বে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়রের সঙ্গে মসজিদ মাদরাসা কার্যকরী কমিটি ও অত্র এলাকাবাসীর একাধিকবার নতুন মসজিদ নির্মাণের বিষয়ে আলোচনা হয়েছিল। তবে মেয়র মহোদয় প্রতিটি বৈঠকেই পুরাতন মসজিদ ভেঙ্গে ও মাদরাসা উচ্ছেদ করে সেখানে মার্কেটসহ মসজিদ নির্মাণের প্রস্তাব দিয়ে আসছেন।

 

এই বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে বাগে জান্নাত কর্তৃপক্ষের তথা এলাকাবাসীর মতানৈক্য দেখা দেয়। দারুল উলুম বাগে জান্নাত মাদরাসাটি বর্তমানে বেফাক ও হাইয়াতুল উলিয়ার অর্ন্তভুক্ত। বাগে জান্নাত মাদরাসায় এতিম অসহায় ও দু:স্থ পরিবারের শিক্ষার্থীরা ধর্মীয় শিক্ষা গ্রহণ করে দেশের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে-ইসলাম ধর্মের সর্বোচ্চ দ্বীনি শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে বছর বছর এখান থেকে বহু ছাত্র কুরআনের হাফেজ ও মুফতি হয়ে বের হচ্ছেন। দেশের সকল কওমী মাদরাসাকে বাংলাদেশ সরকার স্বীকৃতি দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মুসুল্লীদের সহযোগিতায় গত কয়েক বছরের ব্যবধানে ধাপে ধাপে মসজিদটি নির্মাণ ও আধুনিকীকরণ করা হয়েছে। বৃহদায়তন এই মসজিদটি ভেঙ্গে নতুন মসজিদ তৈরীর আবশ্যকতা এই মূহুর্তে নেই।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart