1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৯:৩২ অপরাহ্ন

মেয়র আইভীকে যে হুশিয়ারী দিলেন ওলামা পরিষদ

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শুক্রবার, ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৩১
মেয়র আইভীকে যে হুশিয়ারী দিলেন ওলামা পরিষদ

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীর বিরুদ্ধে মসজিদ ভেঙ্গে শপিং মল ও মাদ্রাসা উচ্ছেদ করে পার্ক করার অভিযোগ এনে সমাবেশ করেছে নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদ।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক মাসদাইর কবরস্থান হাফিজিয়া মাদরাসা বিলুপ্তি, চাষাঢ়া বাগে জান্নাত দাওরায়ে হাদিস পর্যন্ত মাদরাসায় নগ্ন হস্তক্ষেপ এবং নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা আব্দুল আউয়ালের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) জুম্মার নামাজের পর শহরের চাষাড়ায় বাগে জান্নাত মসজিদের সামনে কয়েক হাজার মুসুল্লি ও শত শত আলেম-ওলামা এই সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেশ থেকে সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভীর বিরুদ্ধে ফতোয়া দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ ওলামা পরিষদের প্রায় অর্ধশত ওলামা। তারা এসময় শহরের কয়েকটি মসজিদ ও মাদ্রাসা দখল ও ভাঙ্গার প্রতিবাদ জানিয়ে মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারী দিয়েছেন।

মহানগর ওলামা পরিষদের সভপতি মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদানীনগর মাদ্রাসার মোহতামিম ও নারায়ণগঞ্জ হেফাজত ইসলামের সাধারণ সম্পাদক মুফতি বশীর উল্লাহ।

মেয়রকে উদ্দেশ্য করে বক্তারা বলেন, আপনি দুই দুই বার মেয়র নির্বাচিত হয়ে দাম্বিকতায় ভরে যাচ্ছেন। আপনার কোন রক্ষচক্ষু, ষড়যন্ত্র নবীর ঘরের বিরুদ্ধে, মসজিদের বিরুদ্ধে আমরা বিনা চ্যালেঞ্জে ছেড়ে দিবো না। প্রয়োজনে মসজিদের জন্য, মাদরাসার জন্য বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিবো। রক্ষা করবো মসজিদ-মাদরাসা, ইনশাআল্লাহ।

তারা বলেন, মাসদাইরে মাদরাসা বন্ধ করে সাহস পেয়ে গেছে মেয়র। তাই আবার বাগে জান্নাত মসজিদের দিকে নজর দিয়েছেন তিনি। আমরা ইতিহাস জানি রাজধানীর মালিবাগে যখন মসজিদের উপর আক্রমন হয়েছিল তখন মালিবাগ মাদরাসার ছাত্ররা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে মসজিদ রক্ষা করেছিল। নারায়ণগঞ্জের মেয়র আপনাকে স্পস্ট ভাষায় বলে দিতে চাই আপনি মুসুলমানদেরকে দেখেছেন কিন্তু মুসুলমানদের বুকের তাজা রক্ত এখনো দেখেন নাই।

তিনি (মেয়র) কুতুববাগের পীরকে শত শত সরকারী জমি লিজ দিয়ে সেখানে গিয়ে ভন্ডামী করতে পারেন আর নারায়ণগঞ্জের বাগে জান্নাত মসজিদ ভাংতে চান। আপনার প্রতি সম্মান রেখে বলতে চাই, আপনি নারায়ণগঞ্জের আলেম-ওলামাদের রং আগেও দেখেছেন , নারায়ণগঞ্জে হেফাজতে ইসলাম নামে সংগঠন আছে। নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে আপনার বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এখনো সময় আছে আবদুল আউয়ালের কাছে ক্ষমা চান। না হলে আগামীতে মেয়র তো দুরের কথা মেম্বারও হতে পারবেন না।

বক্তারা আরও বলেন, আমরা নারায়ণগঞ্জে এমন মেয়র দেখেছিলাম যিনি খোদা ভীরু হবেন। কিন্তু দু:খের বিষয় হলো তিনি (আইভী) হিন্দুদের মন্দিরে গিয়ে পূজা করেন। যে নাকি আল্লাহ ব্যতিত অন্য কাউকে সেজদা করে সে মুশরিক হয়ে যায়। এমন মুশরিক-কাফের মেয়র আমরা চাই না।

মেয়রকে উদ্দেশ্য করে ওলামারা আরও বলেন, আপনি হিন্দুদের মন্দিরে গিয়ে সেজদা করবেন আবার মসজিদকে বিলুপ্ত করবেন আল্লাহর নবীর ঘরের উপর আপনি হাত দিবেন আর নারায়ণগঞ্জের মুসুলমান তাকিয়ে দেখবে এটা আমরা কোনদিন বরদাশত করবো না। মহানগর ওলামা পরিষদের সভাপতি মাওলানা ফেরদৌস যদি আগামীতে ডাক দেয় তাহলে আমরা সিটি করপোশেন ঘেরাও করবো। আমরা নারায়ণগঞ্জে এই মেয়র চাই না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা উদাত্ত আহবান জানাই নারায়ণগঞ্জের মানুষ এই মেয়রকে আর দেখতে চায় না। আমাদের মাদরাসা-মসজিদকে রক্ষা করতে যদি আমাদের রক্ত দিতে হয়, জীবন দিতে হয় আমরা দিবো।

মাওলানা আবদুল আউয়ালকে নিয়ে কোন কটুক্তি করলে বুড়িগঙ্গায় ডুবাইয়া মারবো। আপনি (আইভী) কাউকে পাশে পাবেন না, কারণ হিন্দুদেরও ক্ষেপিয়েছেন মুসুলমানদেরও খেপিয়েছেন। মাওলানা আব্দুল আউয়াল, ফেরদাউসের বিরুদ্ধে মামলা করতে চান? নারায়ণগঞ্জ অচল করে দেয়া হবে। মসজিদ আল্লাহর নবীর ঘর। দয়া করে এই ঘরে হাত দিবেন না। যদি হাত দেয়া হয় খোদার কসম ওই হাত শরীর থেকে ছিড়ে ফেলা হবে। মসজিদ-মাদরাসা রক্ষা করা ইমানী দায়িত্ব। এই মসজিদ-মাদরাসা রক্ষার জন্য প্রয়োজনে আমরা রাজপথে নেমে আসবো। বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিবো। বাগে জান্নাত মসজিদ-মাদরাসা আছে, থাকবে। পৃথিবীতে এমন কোন শক্তি নাই যে বাগে জান্নাত মসজিদ বন্ধ করবে। আপনার কোন পরিকল্পনা থাকলে অন্য দিকে করেন। বাগে জান্নাতে নয়। এখানে কোরআন শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। হাফেজ বানানো হচ্ছে। স্পস্টভাবে বলছি কোরআনের দিকে হাত বাড়ালে হাত পুড়ে যাবে। বাগে জান্নাতের দিকে হাত বাড়ালে হাত ভেঙ্গে দেয়া হবে।

আপনি (আইভী) বন্দরে মসজিদ ভেঙ্গে আবু সুফিয়ানকে বাড়ি করে দেন, লুচ্চামি বদমাশী ছাড়েন।  সাবধান। মাওলানা আব্দুল আউয়াল, ফেরদাউস, কাশেমীর নেতৃত্বে আমরা নারায়ণগঞ্জের আলেম ওলামারা এক হয়ে গেছি। হেফাজত মরে নাই। ২০১৩ সালের হেফাজত আর ২০২১ সালের হেফাজত আকাশ-পাতাল ব্যবধান। ভাববেন না আল্লামা শফী, কাশেমী ‍দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছে, হেফাজতের নেতৃত্ব নাই। এটা ভুল, আল্লামা বাবু নগরী,  ‍মুফতি মামুনুল হকের নেতৃত্বে প্রয়োজনে নারায়ণগঞ্জে আরেকটি শাপলা চত্তর হবে।

ওলামারা আরও বলেন, আপনি (আইভী) দায়িত্বশীল চেয়ারে বসে যাকে ইচ্ছা তাকে নিয়ে যা খুশি বলবেন এটা আমরা মেনে নিতে পারি না। আমরা কোন ব্যক্তির বিরুদ্ধে নয়, ব্যক্তির কর্মের বিরুদ্ধে । আপনি মনে করবেন না আপনি আজীবন মেয়র থাকবেন। এই স্বপ্ন দেইখেন না। স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে যাবে।

তিনি (আইভী) মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর রাস্তা, ঘাট-কালভার্ট-ড্রেন করেছেন। নদীর ওই পাড়ে যেগুলো আঘাট ছিল সেগুলোকে ঘাট বানিয়েছেন। অনেক ভালো কাজ করেছেন। কিন্তু দুএকটি কাজের জন্য আপনার সবগুলো ভালো কাজ নস্ট হয়ে গেছে। আপনি মসজিদ-মাদ্রাসায় হাত দিয়েছেন এর জন্য আপনার সমস্থ উন্নয়ন মানুষ শীতলক্ষ্যা নদীতে নিক্ষেপ করবে। আপনার এই উন্নয়ন মানুষ দেখতে চায় না যে উন্নয়নের নামে মসজিদ মাদরাসা বন্ধ করতে চান। পরিস্কারভাবে বলতে চাই, আপনার ডানে বামে কিছু রাম বাম থাকে। আমাদের বাগে জান্নাতের টয়লেটে যে কয়টা বদনা আছে আপনার আশে পাশে সে কয়টা রাম-বাম খুঁজলেও পাওয়া যাবে না। আপনি মনে করবেন না নারায়ণগঞ্জবাসী আপনাকে জয়যুক্ত করেছে বিদায় আপনি যা খুশি তা করবেন । আপনি মসজিদ মাদরাসায় হাত দিয়েছেন। আপনি মন্দিরে গিয়ে কালি মুর্তীর সামনে হাতজোড় করে প্রার্থনা করেছেন। মানুষ বুঝতে পেরেছে আপনি কোন পন্থীর  লোক।

বেশে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুমেরও  সমালোচনা করা হয়।

সমাবেশে শ্লোগান দেয়া হয়, “ইসলামের শত্রুরা হুশিয়ার সাবধান”   “মসজিদ মাদরাসার শত্রুরা হুশিয়ার সাবধান” ‘আইভীর কালো হাত ভেঙ্গে দাও গুড়িয়ে দাও’।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মাওলানা মুফতি দেলোয়ার হোসেন, মাওলানা মুফতি হারুন উর রশিদ, মাওলানা ওবায়দুল কাদের, মাওলানা মাহমুদুল হাসান পাটোয়ারী, মুফতি কবির হোসাইন, মুফতি মাসুম বিল্লাহ, হয়রত মাওলানা কামাল উদ্দিন দায়েমী মুফতি রহমত উল্লাহ বুখারী, মুফতি আবুল কাশেম, মাওলানা মোস্তফা আল হাবিব,  মাওলানা মনোয়ার হোসাইন, মুফতি রুহুল আমীন প্রমুখ।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart