1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৭:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম

মেয়র আইভীকে মাওলানা আউয়ালের হুশিয়ারী

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৪১
মেয়র আইভীকে মাওলানা আউয়ালের হুশিয়ারী

নারায়ণগঞ্জ শহরের ডিআইটি মসজিদের খতিব ও হেফাজতের জেলা আমীর মাওলানা আব্দুল আউয়াল বলেছেন, আপনি তো সেই আইভী? আপনার ইতিহাস উম্মোচন হচ্ছে। মনে রাখবেন আমার ব্যাপারে কিছু যায় আসে না। আমাকে হত্যা করবা? ডিআইটি থেকে সরিয়ে দিবা। কোন আপত্তি নাই। কিন্তু নারায়ণগঞ্জবাসাী তোমাকে ছাড়বে না। মনে রাখবা।

শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) জুম্মার নামাজের বয়ানের সময় নগরীর ডিআইটি মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল আউয়াল নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে উদ্দেশ্য করে এসব কথা বলেন।

মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এই নারায়ণগঞ্জের এক মেয়র আছে। এই মেয়রের একটা ছবি দেখছিলাম। ওনি নাকি মন্দিরে যাইয়া সিঁদুর লাগাইয়া ওনি পূজা করতেছে। ছবিটা ভাইরাল হইছে। আমি দেখলাম। আর্চায্য! একটা মুসলমান নারী নারায়ণগঞ্জের মেয়র হিসেবে নিজেকে দাবী করো। তুমি মন্দিরে যাইয়া সিঁদুর লাগাইয়া গাতে চুড়ি-ফুল পড়ে হাত জোড় করে নম নম করতেছো, কোন মুসলমান কি এটা সহ্য করতে পারে কি না?

আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তার (আইভী) অবস্থাটাও বুঝতে পারতেছি না। মাসদাইর গোরস্থানে দীর্ঘদিন একটা মাদ্রাসা ছিল। মাদ্রাসাটা ভেঙ্গে দিসো। মসজিদটা ভেঙ্গে সে একটা মসজিদ করছে। মসজিদে সে তার মন মত বেদাতি ইমাম ঢুকাইছে। আমাদের দীর্ঘ বছরের যে হক ইমাম ছিল তাকে উচ্ছেদ করেছে। সেখানে সে বলেছিল নিজস্ব অর্থায়নে মাদ্রাসাটা করে দিবে। এখন পর্যন্ত তারা মাদ্রাসাটা করে দিচ্ছে না। ইদানিং খবর পেলাম বাগে জান্নাত একটি মসজিদ মাদ্রাসা ভাঙ্গার জন্য প্রথম লোক পাঠাইছে। পরবর্তীতে সে নিজে যাইয়া বলেছে এটা ভেঙ্গে দিবে এটা সিটির জায়গায় আছে। এখানে শিশু পার্ক বানাবে। মসজিদ ভেঙ্গে মাদ্রাসা ভেঙ্গে শিশু পার্ক বানাইবো। ইদানিং আরও আলোচনা শুনতেছি ডিআইটি মসজিদের সামনে দিয়ে সে একটা ফ্লাই ওভার বানাবে রাসেল পার্ক পর্যন্ত। সেদিন লোকজন এসে মেপে গেছে। পার্কের দর্শনাথীরা উপর দিয়ে যাবে। মসজিদের মুসল্লিরা নিচ দিয়ে যাবে। এসময় তিনি মুসল্লিদের বলেন, বুঝতেছেন ব্যাপারাটা? বুঝেন নাই এখনো? তার টার্গেট হলো ডিআইটি মসজিদটা সে নিয়ে যাবে। আসলে মসজিদ নেয়ার টার্গেট হলো আমি এখানে কেনো আছি। এমন কি সে (আইভী) বলতেছিল এই লোকটা (আব্দুল আউয়াল) মসজিদের সেক্রেটারী হয় কি করে? আমার সভাপতিকে সে বলছিল যে ওনাকে আপনাকে সেক্রেটারী বানাইছেন কেন? ইমাম আবার সেক্রেটারী কিভাবে হয়? তার (আইভী) মাথা তেলে বেগুনে জলতে শুরু করেছে। পরে ওনি (সভাপতি) বলছিলেন যে আমাদের কাছে গ্যাজেট আছে। ফাউন্ডেশন থকে আমরা গ্যাজেট আনছি। কোন প্রতিষ্ঠান প্রধান এইটার সেক্রেটারী/সাধারণ সম্পাদক হতে পারে।

ভিডিও লিঙ্ক :https://fb.watch/3vlT7TJbl5/

মেয়র আইভীকে উদ্দেশ্য করে আব্দুল আউয়াল বলেন, তার (আইভী) টার্গেটটা হইলো এখন ডিআইটি মসজিদটা। এই মসজিদটাকে নিয়া সে নিজের মন মত বানাইবে। এবং আমাকে দুই-একবার বলছিল এই মসজিদটা আমাকে দিয়ে দেন। কিন্তু এই মসজিদটা যে জনগণ করছিল আপনার (আইভী) কাছে ভালো লাগে না? আপনি মেয়র হওয়ার বহু আগের থেকে এইখানে ডিআইটি মসজিদ। সে বলতেছিল রেলওয়ের জায়গা। কিন্তু রেলওয়ের জায়গায় আপনি যা মনে চাচ্ছে তা করতেছেন। ডিআইটি মসজিদটাকে নিয়ে আপনি যা ইচ্ছা তা করবেন। ডিআইটি মসজিদ তো আপনি মেয়র হওয়ার আগে সরকারি জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এটা আপনার বাবার জায়গা না। এইখানে আপনি বাবার নামে একটা পাঠাগার বানাইছেন সেইখানে কত হাজার কোটি টাকা খরচ করেছেন? ফুটপাত আপনি পরিস্কার রাখতে চান, অথচ ফুটপাত দখল করে রাখছেন এখানে। মানুষগুলি হাটতে পারতেছে না। তাদেরকে রোডের উপর দিয়ে হাটতে হয়।

আব্দুল আউয়াল প্রশ্ন রাখেন মেয়রের কাছে, আসলে আপনার উদ্দেশ্য কি? আপনি চাচ্ছেন? মাজারওয়ালাকে জায়গা দিতে পারেন। এইখানে রাস্তা ভাঙ্গতে ভাঙ্গতে যখন মাজার (মিন্নত আলী) পড়ে গেলো তখন সে (আইভী) অফ হয়ে গেলো। কারণ মাজারে হাত দেয়া যাবে না। এখন করলেন কি কিছুদিন আগে মাজারওয়ালাদের তিন শতাংশ জায়গা দিলেন তারা ওজুখানা করলেন। এরপর আবার দিলেন ৬ শতাংশ জায়গা। তারা নিচ তলা দোতলা তিন কোটি টাকা বিক্রি করে দিয়েছে। আমাদের দক্ষিপাশে গাউছিয়া মাদ্রাসা। সেইখানে ৩৩ শতাংশ জায়গা তাদেরকে দিয়ে দিলেন। তাদের বিল্ডিং করে দিবেন। তাহলে তাদের সাথে এতো ভারো আচরণ আর আমাদের সাথে এতো খারাপ আচরণ কারণটা কি আপনার?
আসল হলো আপনি মাজারপন্থী। আপনি শিরিকপন্থী। আপনি ঠিকমত নামাজ পড়েন না। এই কারণে আপনি এই সমস্ত কাজ করতে পারতেছেন।

আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, আইভী আপনি মনে রাইখেন আমি আব্দুল আউয়াল চলে যাইতে পারি। এই জনগণ আপনাকে ছাড়বে না কোনো দিন। আপনি যা খুশি তাই করবেন এটা হতে পারে না। ডিআইটি মসজিদ আপনার চোখের মধ্যে লাগছে, না? আপনার চোখে শূল হইছে। আপনি কোরবানীর সময় কোরবানী করেন না। ১০ই মহরম গরু জবাই করেন। আপনি তো সেই আইভী। ইতিহাস উম্মোচন হচ্ছে। মনে রাখবেন আমার ব্যাপারে কিছু যায় আসে না। আমাকে হত্যা করবা? ডিআইটি থেকে সরিয়ে দিবা। কোন আপত্তি নাই। কিন্তু নারায়ণগঞ্জবাসী তোমাকে ছাড়বে না। মনে রাখবা। তুমি একটার পর একটা শুধু আমাদের উপর নগ্ম হস্তক্ষেপ করবা। আমরা তোমার সতীনের ছেলে। আর তারা তোমার আপন ছেলে। তুমি মাজারওয়লাদের সব কিছু। রাস্তা খুলে দিচ্ছো। তুমি বিশেষ করে আমাদের কওমী অঙ্গনকে দেখতে পারো না।

আবউদল আউয়াল বলেন, কিছুদিন আগে শুনেছি পাইকপাড়া গোরস্থানে কিছু যুবক ও মহিলারা জিয়ারত করতে যেয়ে তারা সব পিকনিকের মতো ঘোরে। সেইখানে কিছু যুবক বলছে ইমাম সাহেবের কাছ থেকে হাদিস নিয়েছি যে মহিলাদের এভাবে গোরস্থানে যাওয়া হাদিসে বৈধ না। এই জন্য হাদিস লিখে গোরস্থানের গেইটে লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। ওনি (আইভী) লোক পাঠাইয়া সেইগুলি ছিলে ফেলছে। এবং সেখান থেকে কমিটির লোকদের ডেকে বলেছে আমার এরিয়ার মধ্যে আমার যা মনে চায় আমি তাই করবো। এটা লাগানোর অধিকার কে দিলো। তিনি (আইভী) কি চায়? তিনি কোরআনের বিরুদ্ধে যাবে তিনি হাদিসের বিরুদ্ধে যাবে। তিনি নারায়ণগঞ্জ শহরটাকে মাজারওয়ালা বানাতে চায়। এটা হবে না কোনো দিন।

এসময় আব্দুল আউয়াল মুসল্লিদের উদ্দেশ্য করে আরও বলেন, এই ইমানদারেরা ইমানের বলে বলিয়ান হন। ডিআইটি মসজিদে একটা ইটের উপর হাত দিলে তার কবর রচনা হবে বাংলার জমিনে। এতো বড় সাহস? এই জন্য আমি সকলো কাছে উদাত্ত আহবান করবো। ডিআইটি মসজিদের সামনে ফ্লাই ওভার বানাবে। কোন দিন বাস্তবায়িত হতে দিবো না। কোন আন্দোলন যদি আসে ডাক দেই যদি আপনারা আসবেন তো ইনশাআল্লাহ। তখন মুসল্লিরা হাত উঁচিয়ে বলেন আসবো ইনশাআল্লাহ।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart