1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন

অডিও ফাঁস করেছেন আইভী, তার উদ্দেশ্য ভালো না : মাওলানা আউয়াল

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ২৪৮
পরিকল্পিভাবে অডিও ফাঁস করেছেন আইভী : মাওলানা আউয়াল

নারায়ণগঞ্জে হেফাজতের আমীর ও নগরীর ডিআইটি মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুল আউয়াল নাসিক মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, ফোনালাপ হইছিলো আপনার সাথে। সেটা সাংবাদিকদের কাছে গেলো কেমনে? তার মানে আপনি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবেই এটা তৈরি করেছিলেন। এবং পরিকল্পিভাবে ফোন আলাপের সেই অডিও ফাঁস করে দিলেন। আপনার উদ্দেশ্য ভালো না।

 

আব্দুল আউয়াল বলেন, মেয়র যখন ফোনে কথা বলছিলেন আমি অপ্রস্তুত অবস্থায় তার সাথে কথা বলছি। কিন্তু উনি সবকিছু সাজিয়ে গুছিয়ে কথা বলে আমার কথাগুলোকে সংরক্ষণ করবেন এজন্যই আমাকে ফোন দিয়েছিলেন। আমি ছিলাম অপ্রস্তুত আর তিনি ছিলেন সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

 

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) জুমার নামাজে খুতবার পূর্বে বয়ানের সময় তিনি এসব কথা বলেন।

 

আব্দুল আউয়াল বলেন,আমরা কোন রাজনৈতিক ব্লকের লোক না। আমরা আল্লাহ পাকের সৈনিক। আমরা মুসুলমানদের একটা মুখপাত্র। ইমানদারের মুখপাত্র। খোদার কসম, আমরা কোনদিন আমাদের অন্তরের মধ্যে মুনাফেকি লালন করে কথা বলি না। যা অন্তরে আছে তা-ই বলে দেই। আপনারা ইলেকশনে কে আসবেন? কে পাশ করবেন? কে ফেল করবেন? এগুলি আমাদের দেখার বিষয় না।

 

আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, পত্রিকায় আসছে আপনি মাসদাইরে মাদ্রাসা ভাংছেন। পত্রিকায় আসছে আপনি বাগে জান্নাত মাদ্রাসায় হাত দিচ্ছেন। পত্রিকায় আসছে আপনি সিরাজ শাহের মাজারে গিয়ে নাচানাচি করতেছেন। পত্রিকায়ই তো সবই আসে। পত্রিকায় বলতেছে আপনি এটা করতেছেন, তাহলে আমি মিথ্যা কথা বলবো কি করে। পত্রিকার কথা আমরা বলবো। পত্রিকার কথা সত্য হতে পারে মিথ্যা হতে পারে। যদি সত্য না হয় তাহলে পত্রিকাওলাদের ধরেন? কেন তোমরা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা লিখলা। তাদেরকে ধরবেন না আমাদেরকে মিথ্যাবাদী বানাবেন। এটাতো হতে পারে না।

 

আইভীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরও বলেন, কত দিন এমন করবেন ক্ষমতার মসনদে বসে? আরে ক্ষমতা আল্লাহ সব সময় রাখে না। এসময় কোনআনের আয়াতের উদ্ধৃতি দিয়ে মাওলানা আউয়াল বলেন, “আল্লাহ বলেছেন আমি যাকে ইচ্ছা করি তাকে মসনদে রাখি। যাকে ইচ্ছা করি না তাকে মসনদ থেকে ফেলে দেই। আমি কাউকে ইজ্জত দেই কাউকে বেইজ্জত করে দেই। এই সমস্ত কিছু আমার হাতে”।

 

তিনি আরও বলেন, আমি আপনাদেরকে ঢাকার মেয়রের মসজিদ ভাঙ্গার প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলেছিলাম সেদিন। সে প্রসঙ্গ থেকে মেয়র আইভীর কিছু কীর্তির কথাও বলেছিলাম। যেমন, এখানে এতবড় রাস্তা প্রশস্ত করতে এসে আপনি রাস্তা খাপায় (সরু) নিলেন। কারণ সামনে একটা মাজার আছে। এটাকে উচ্ছেদ করার মত সাহস আপনার নাই। আর আপনি এটাতে হাত দিতেও পারবেন না। আমাদের এখানে হাত দিলে আপনার অসুবিধা নাই। কিন্তু ওখানে হাত দিলে আপনার হাত গলে যাবে। এটা হলো আপনার আকিদা বিশ্বাস।

 

আপনি (আইভী) বার বার বলছেন, মায়ের জাতকে সম্মান দেন না। আরে মায়ের জাতের সম্মান ইসলাম যতটা দিয়েছে পৃথিবীতে আর কেউ দেয় নাই। মায়ের জাতের কথার প্রসঙ্গ এনে। আপনি আমাদের দুর্বল করতে চান। আমরা কি আপনাকে গালি দিসি। আপতি তো পারেন গালি দিয়ে কথা বলতে। আমরা মায়ের জাতকে গালি দেয় না। মায়ের জাত থেকে আমরা আসছি। কিন্তু মায়ের জাতকে মায়াবিনী হতে হবে। ইজ্জত সম্মানকে সে রক্ষা করতে হবে। যে মা মায়ের সম্মান রক্ষা করে না সন্তানরা তখন তার সম্মান দিতে পারে না।

আব্দুল আউয়ালের বক্তব্যের ভিডিও লিঙ্ক :https://fb.watch/3LEEnKxT4k/

আব্দুল আউয়াল বলেন, আপনি যেখানে ফুটপাত পরিষ্কার করার জন্য আন্দোলন করেন, সেখানে আপনি আপনার বাবার নামে পাঠাগার তৈরি করে ফুটপাত দখল করেছেন। ডিআইটি মসজিদের এদিকে সার্ভেয়ার আসছিল জায়গা মাপতে। জায়গা মাপা দেখে আমরা তাদের জিজ্ঞেস করেছিলাম কী মাপছেন? তারা বলেছিলেন, এখানে ফ্লাইওভার হবে সেটা মাপতে এসেছি। মেয়র বলেছেন, কেন তাকে ফোন দিয়ে জিজ্ঞাসা করি নাই? কথা হচ্ছে, সার্ভেয়াররা অনেক কাজই করে আর অবশ্যই সেটা মেয়রের নির্দেশেই। আমি বলেছিলাম ডিআইটি মসজিদে কেউ হাত দিলে কবর রচিত হবে। মেয়র আইভীকে উল্লেখ করে আমি কিছুই বলি নাই। তিনি আমাকে বার বার বলছিলেন, আপনি নাকি আমার কবর রচিত করবেন। আপনি এতো বড় থ্রেট করলেন যে আপনি আগামী কাল কই থাকবেন? আপনিও তো সন্ত্রাসী কায়দায় আমাকে হুমকি দিলেন। আমি বার বার বলতেছিলাম আপনার কবর রচিত শব্দটা একবারও বলি নাই আপনি আবার পড়ে দেখেন, ডিআইটি মসজিদে যারা হাত দিবে তাদের কবর রচিত হবে। সে যেই কোন ব্যক্তি হোক না কেন।

 

আব্দুল আউয়াল বলেন, মাজার যদি জাতীয়করণ হয়ে সরকারী জায়গায় থাকতে পারে, তাছাড়া ভাস্কর্য বানাইছেন কোথায়? সরকারী জায়গায় না। মসজিদের পিছনে পার্ক তৈরী হচ্ছে এটাও সরকারী জায়গা। বলছেন পার্ক জনগণের জন্য। তো সরকারী জায়গায় জনগণের জন্য পার্ক হতে পারে, স্টেডিয়াম হতে পারে, ভাস্কর্য হতে পারে, মাজার থাকতে পারে, জনগণের জন্য কি মসজিদ-মাদ্রাসা হতে পারে না?

 

তিনি বলেন, এখানে মাজারওলারা জায়গায় পায়, গাউছিয়াওলারা জায়গা পায় স্কুলওয়ালা জায়গা পায় শুধু মাদ্রাসাওয়ালা পাবে না এখানে বেতন নেয় বিধায়। আসলে আমি গত সপ্তাহে বলেছিলাম আপনার মনে উদ্দেশ্য খারাপ। আপনি আমাদেরকে সহ্য করতে পারেন না। কওমিওলাদের আপনি সহ্য করতে পারেন না। আপনি আমাদেরকে ভিন্নভাবে দেখতেছেন।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart