1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:২৩ পূর্বাহ্ন

সিদ্ধিরগঞ্জে বিভিন্নস্থানে ময়লার বাগাড়, জনদুর্ভোগ, দেখার কেউ নেই

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৮১
সিদ্ধিরগঞ্জে বিভিন্নস্থানে ময়লার বাগাড়, জনদুর্ভোগ, দেখার কেউ নেই

ফেলার নির্দিষ্ট স্থান বা ডাস্টবিন না থাকায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সিদ্ধিরগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচেছ। এতে নিত্যদিনের ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ মানুষ। মানুষের এমন ভোগান্তি থাকা সত্ত্বেও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন কোনো কার্যকরী পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

 

 

সিদ্ধিরগঞ্জের মৌচাক বাসস্ট্যান্ডের দক্ষিণ পাশে ও চিটাগাং রোড খানকায়ে মসজিদের পূর্ব পাশে আবর্জনা না ফেলার নির্দেশনা থাকলেও নিয়মিত সেখানে ময়লা ফেলা হচ্ছে। এছাড়াও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের  জালকুড়ি এলাকায়ও ময়লা ফেলা হচ্ছে। বাদ যাচ্ছে না চিটাগাংরোড-আদমজী-চাষাড়া সড়কের আশ-পাশ। এই সড়কের বেশ কয়েকটি পয়েন্টে ময়লার স্তুপ পড়ে আছে দিনের পর দিন। তাছাড়া বিভিন্ন এলাকার মোড়ে ও পরিত্যক্ত জায়গায়ও ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচ্ছে।

 

 

সিদ্ধিরগঞ্জের মৌচাক বাসস্ট্যান্ড থেকে নিয়মিত বাসে উঠেন অফিসকর্মী জাহিদুল। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে দেখছি এখানে ময়লা ফেলা হয়। এতে দুর্ভোগ হলেও এ সমস্যা সমাধানে কেউ এগিয়ে আসছে না।

 

 

সোহেল নামের এক পথচারী বলেন, এ রাস্তা দিয়ে (খানকায়ে মসজিদের পূর্ব পাশে) অনেক মানুষ চলাচল করেন। দিনের পর দিন স্থানটি ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হলেও এ সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

 

 

গোদনাইল এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ি আবুল কালাম জানান, বার্মাইষ্টানের পর যে পুলটি রয়েছে তার পুর্বপাশ্বে ময়লার বাগাড়। দীর্ঘদিন ধরে মানুষ এখানে ময়লা ফেলছে, র্দুগন্ধে এপথ দিয়ে চলা মুশকিল।

 

 

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের স্যানিটারি বিভাগের কর্মকর্তা আলমগীর হিরণ জানান, সিটি করপোরেশনের জনবলের সংকট রয়েছে। এ জনবল দিয়ে অনেক এলাকাতেই কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে বিভিন্ন এলাকায় ময়লা-আবর্জনা অপসারণের লক্ষ্যে পরিচ্ছন্ন কর্মীরা কাজে করে যাচ্ছে। ওই এলাকার ময়লার স্তূপ অপসারণের বিষয়ে খুব শিগগিরই পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
© All rights reserved © 2018narayanganjtimes
Customized By NewsSmart