1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ০৪:০৬ অপরাহ্ন

আমার রাজনৈতিক স্বার্থকতা বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদ : আনোয়ার

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • রবিবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০৬

মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেছেন, পচাত্তরের ১৫ই আগস্ট জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে যখন আন্তুর্জাতিক চক্রান্তেুর মধ্য দিয়ে হত্যা করা হল।

অনেকে সেদিন প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি। আওয়ামীলীগের অনেক বড় বড় নেতা ছিল ছাত্রলীগে অনেক বড় বড় নেতা ছিল। কিন্তু সেদিন তারা নিরব হয়ে গেল। এই নারায়ণগঞ্জ থেকে আওয়ামীলীগের ভিত রচনা করা হয়েছে। এই নারায়ণগঞ্জে আওয়ামিলীগের জন্ম।

এই নারায়ণগঞ্জের মানুষ বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদ করতে পারবে না তা হতে পারে না। আমরা সেদিন কয়েকজন মুষ্টিমেয় লোক, আমি তোলারাম কলেজের সহ সভাপতি আমার বন্ধু রোকন উদ্দীন আমি সাধারণ সম্পাদক।

তাকে নিয়ে আমি পরামর্শ করলাম কী করা যায়। আমরা মুষ্টিমেয় কয়েকজন লোক। সেদিন কেউ আসতে চায়নি, সাহস করেনি। আমরা দশ থেকে পনেরোজন ছাত্র বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদে ঝটিকা মিছিল করলাম।

সেদিন এইটুকু দুঃসাহস আমরা দেখিয়েছিলাম। আমি বলতে পারি আমার রাজনৈতিক স্বার্থকতা আমি বঙ্গবন্ধুর হত্যার প্রতিবাদ করতে পেরেছিলাম।

 

রোববার (১০ জানুয়ারি) বিকেলে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে মর্গ্যান গার্লস স্কুলে আয়োজিত এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ২৩ শে নভেম্বর জেলখানায় আমাদের জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হল। আমরা সেদিন হরতাল করেছিলাম মিছিল করেছিলাম। একসময় আর টিকে থাকতে পারি নাই। স্বৈরাচারী গোষ্ঠী সেদিন আমাকে গ্রেফতার করেছিল নির্যাতন করেছিল।

আমাকে রাজনীতি থেকে দূরে সরিয়ে রাখার অনেক চেষ্টা হয়েছিল। আমি সেদিন বলেছিলাম বঙ্গবন্ধু ছাড়া এদেশে কোন নেতা হতে পারে না।

একাধারে চৌদ্দ মাস কারাবন্দী ছিলাম। আমার মা আমার চিকিৎসার জন্য মুক্তি প্রদানের আবেদন করে চিঠি দিয়েছিল। তারা আমার মার সেই বক্তব্য শ্রবণ করেনি।

আমি কোনদিন ফাঁকি দেইনি। মিছিল-মিটিং মানুষের দাবী মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন করতে গিয়ে বারবার জেলে গেলাম। এরশাদ জিয়া সাত্তার বিভিন্ন সরকারের আমলে জেল খেটেছি।

তিনি আরও বলেন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী বললেন মানুষের কল্যনে কাজ করো মানুষকে ভালবাসতে শিখ। এই একই কথা আমাকে বলেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

তাই এত অত্যাচার নির্যাতন বিভাজন অতিক্রম করে আমি সু্যােগ পেয়েছি এবং মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছি। আমি বঙ্গবন্ধুকে দেখে শিখেছি। বঙ্গবন্ধুর মত হতে চেয়েছি। মানুষকে ভালবাসতে চেষ্টা করেছি।

তিনি বলেন, রাজনীতিতে হতাশার কোন জায়গা নেই। হতাশায় নিমজ্জিত হলে আলোর পথ দেখা যাবে না। অত্যাচার নির্যাতন সবকিছু উপেক্ষা করে আলোর দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

আহসান হাবীব জানান, আজ বাংলাদেশের ইতিহাসের একটি অবিস্মরণীয় দিন। আজ ১০ই জানুয়ারি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব দীর্ঘদিন কারাগারে থাকার পরে পাকিস্তান থেকে দেশের মাটিতে অবতরন করেছিলেন।

১৯৭১ এর ১৬ ডিসেম্বর আমাদের দেশ স্বাধীন হলেও প্রকৃতপক্ষে আমরা স্বাধীনতার সুফল ভোগ করতে পারিনি স্বাধীনতার মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে ছাড়া। আর তাই আমি মনে করি যেদিন বাংলাদেশের মাটিতে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু পদার্পন করেছিলেন সেদিন বাংলাদেশের স্বাধীনতা পূর্নতা পেয়েছিল।

মর্গ্যান গালর্স স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক অধ্যক্ষ অশোক কুমার তরু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আব্দুর কাদির, আরজু রহমান ভূইয়া, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সদস্য সামসুজ্জামান ভাষানী, মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও দাতা সদস্য এস এম আহসান হাবিব, জি এম আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরাফাত, মহিলা কাউন্সিলর শারমিন হাবিব বিন্নী, মোশাররফ হোসেন জনি, সুনয়ন মাহমুদ সুপন প্রমুখ।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart