1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ০৩:২০ অপরাহ্ন

আজও বিচার পেলাম না : মেয়র আইভী

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • বুধবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৮৪

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী বলেছেন, ২০১৮ সালে ফুটপাত দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে হাটতে গিয়ে আমি আক্রমনের শিকার হয়েছি। সেদিন আমি মারাও যেতে পারতাম। অতর্কিত হামলা, আমি অপ্রস্তুত ছিলাম। জানতামও না হামলা করা হবে। আমি হকারদের দোষ দিচ্ছি না। হকাররা নামে মাত্র ছিল। কিন্তু যা-ই হোক যেভাবেই হোক ঘটনা একটা ঘটেছে। কিন্তু সে বিচার তো আজও পেলাম না। সরাসরি পিস্তুল উঁচিয়ে তো মারতে এসেছিল। এবং সামান্য ডিসটেন্সের মধ্যেই তো গুলি করলো। গুলিটা ভাগ্যক্রমে লাগেনি। বেঁচে আছি এখনো। তবে এই ফুটপাত নিয়ে অনেক কথাই হয়েছে। আমরা কিন্তু হকারদের জন্য মার্কেট করে দিয়েছি। আমার বাবা পৌরসভার থেকে হকার মার্কেট করে দিয়েছিলেন ১৯৮১ সালে। তখনো হকাররা মার্কেটের দোকান বিক্রি করে রাস্তায় নেমে আসে। ওই মার্কেটে এখন অন্যেরা মালিক। আমি মেয়র হবার পর ৬০০ হকারের জন্য মার্কেট করে দেই। এরপর তাদের কিছু রাস্তাও দেয়া হলো বসার জন্য। এরপরও এত হকার কোথায় থেকে আসলো?
তিনি বলেন ‘হকারদের পক্ষ কেন অবলম্বন করতে হবে সেটাও সা প্রশ্ন। হকারসহ সব ধরনের নিম্ন আয়ের মানুষের প্রতিই আমাদের সহমর্মিতা আছে। সিটি করপোরেশনেরও আছে। নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রধানতম বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতেই বসতে চায় হকাররা। হকাররা যে দল ক্ষমতায় আসে সে দলের সঙ্গেই আঁতাত করে। রাজনৈতিক নেতাদের সভা সমাবেশে মিছিল নিয়ে যায়। আর হকাররা মনে করে ফুটপাতে বসলেই কাস্টমার পাবে। তাদের মদদ দিচ্ছে রাজনীতিবিদ। আর হকারদের কাছ থেকে তো চাঁদা তোলা হয়। অনেকেই চাঁদা তুলে। সিটি করপোরেশনের কয়েকজন জড়িত ছিল। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এখন আর তারা জড়িত না। আমরা সিটি করপোরেশন, ডিসি ও এসপি মিলে একাধিকবার বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম হকার ফুটপাতে বসবে না। কিন্তু এত বড় ঘটনা ২ বছর আগে আমাদের মারধর করা হলো তার পরেও ফুটপাতে বসে হকারররা। গত সপ্তাহে হকাররা থানা ঘেরাও করে। থানা ঘেরাও করার পরদিন যখন ফুটপাতে হকার বসে এতেই তো প্রমাণিত হয় প্রশাসন কিংবা প্রভাবশালী কেউ এর পেছনে কাজ করছে। পুলিশ তো হকার বসতে দিতে চায় না। অথচ হকাররাও ঠিকই বসছে। তাদের খুঁটির জোর কোথায়? তিনি বলেন, হকারদের নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে। অথচ এই হাকাররা একজনও নারায়ণগঞ্জের না, এখানকার ভোটারও না।
মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) রাতে একটি বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেলে “নগর ভাবনা” অনুষ্ঠানে নিজের সফলতা ও ব্যর্থতা নিয়ে বলতে গিয়ে তিনি এসব কথা।
অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ইবতিসাম নাসিম মৌয়ের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে মেয়র বলেন, ‘বর্তমানে নারায়ণগঞ্জের বড় সমস্যা যানজট, অবৈধ স্ট্যান্ড এবং যত্রতত্র পাকিং। শহরটাকে একদম চেনা যায় না। মনে হয় না এটা একটি শহর। বাংলাদেশে একটি সমস্যা সমাধান করতে গেলে অনেকগুলো সংস্থার প্রয়োজন হয়। যে কোনো শহরের রাস্তা হলো সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভার। ট্রাক, বাস স্ট্যান্ডগুলোও তাদের মানে স্থানীয় সরকারের আওতায় থাকে কিন্তু বাস, ট্রাক কার আন্ডারে থাকে? রোড পারমিট দেয় বিআরটিএ। রোড পারমিট দেয়ার আগে তারা জিজ্ঞাস করে না বাস স্ট্যান্ডের ধারণ ক্ষমতা কতটুকু! একটি শহরকে সাজাতে চাইলে সিটি গভার্নেন্স সবচেয়ে বেশী প্রয়োজনীয়।

আরও পড়ুন

নারায়ণগঞ্জের ৯৫ ভাগ মানুষ আমার সঙ্গে : আইভী

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart