1. admin@narayanganjtimes.com : ntimes :
  2. ahmedshawon75@gmail.com : ahmed shawon : ahmed shawon
শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন

জামপুর ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা

নারায়ণগঞ্জ টাইমস :
  • বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৬০

সােনারগাঁয়ের জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলুর বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযােগে  আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে এই মামলায় তিনি জামিনও পেয়েছেন।  মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) নারায়ণগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ( ঘ –অঞ্চল) মুচলেকার মাধ্যমে তিনি জামিন নেন । বুধবার দিনভর জামপুর ইউনিয়নে আলোচনা-সমালোনার ঝড় বয়ে যায় বিষয়টি নিয়ে ।

জানা যায়, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের ওটমা গ্রামের আওয়ামীলীগ নেতা আবু হােসেন চৌধুরী সাইদুল দুই স্ত্রী রেখে ২০১৮ সালের ৭ ফেব্রুয়ারী মারা যান। পরবর্তীতে একই বছর ২৯ আগষ্ট জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলু ও সাইদুল চৌধুরীর প্রথম স্ত্রী হােসনে আরা চৌধুরী ও স্থানীয় কাজী সাজ্জাত খাঁনের যােগসাজশে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক প্রাপ্ত দেখিয়ে ওয়ারিশ সনদের আবেদন করেন। ওই আবেদনের পর দ্বিতীয় স্ত্রী মরিয়ম আক্তার বিথীর নাম অন্তর্ভূক্ত না করেই ওয়ারিশ সনদ দেন চেয়ারম্যান শিপলু। এ বিষয়টি সাইদুল চৌধুরীর দ্বিতীয় স্ত্রী বিথীর নজরে এলে তিনজনের যােগসাজশে প্রতারণা হয়েছে এ মর্মে চলতি বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারী তারিখে নারায়ণগঞ্জ চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ঘ- অঞ্চলে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আদালত তদন্তের দায়িত্ব দেন সােনারগাঁ থানা পুলিশকে। সােনারগাঁ থানা পুলিশ তদন্ত শেষে আসামীদের যােগসাজশে প্রতারণার সত্যতা পেয়ে আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করে। পরে আদালত তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরােয়ানা জারি করেন। মঙ্গলবার আদালতে হাজির হয়ে চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলু জামিন আবেদন করলে আদালত মুচলেকার মাধ্যমে তাকে জামিন দেযন।

আওয়ামীলীগ নেতা আবু হােসেন চৌধুরী সাইদুলের দ্বিতীয় স্ত্রী মরিয়ম আক্তার বিথী জানান, আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর প্রায় কোটি টাকার সম্পত্তি আত্মসাতের উদ্দেশ্যে জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হামীম শিকদার শিপলু ও সাইদুল চৌধুরীর প্রথম স্ত্রী হােসনে আরা চৌধুরী ও কাজী সাজ্জাত খাঁন যােগসাজশ করে অন্য একটি তালাকের বলিয়মের মাধ্যমে তালাক প্রাপ্ত দেখিয়ে ওয়ারিশ সনদে আমাকে বাদ রেখে ওয়ারিশ সনদ ইস্যু করেন। এ ঘটনায় আমি তিনজনকে আসামী করে আদালতে মামলা দায়ের করি।

এ ব্যাপারে জামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক প্রাপ্ত দেখিয়ে আমার কাছে ওয়ারিশ সনদের আবেদন করলে আমি তালাক নামা দেখে ওয়ারিশ সাটিফিকেট দেই।এখানে প্রতারনার কোন সুযোগ নেই।এ ব্যাপারে আদালত আমার কাছে জানতে চেয়েছে আমি আমার উকিলের মাধ্যমে জবাব দিয়েছি।

নিউজটি আপনার সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ বা ব্যবহার করা  সম্পূর্ণ বেআইনি। সকল স্বত্ব www.narayanganjtimes.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Customized By NewsSmart